সর্বশেষ সংবাদ

ভার্স্কয বিরোধীতার নামে সরকার উৎখাতের চক্রান্ত শুরু করেছে: ইনু

প্রকাশিত: ৬:৩২ পিএম, ডিসেম্বর ২, ২০২০
  • শেয়ার করুন

ভাস্কর্য বিরোধী এই রাজনৈতিক মোল্লারা জামাত-বিএনপির ভাড়াটে খেলোয়ার এবং ভার্স্কয বিরোধীতার নামে আসলে সরকার উৎখাতের চক্রান্ত শুরু করেছে বলে জানিয়ে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি বলেছেন, ভাস্কর্যের বিরোধীতাকারী রাজনৈতিক মোল্লারা ধর্মের অপব্যাখা দিয়ে অশান্তি সৃষ্টির রাজনীতি করছে।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে মহানগর জাসদের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ইনু বলেন, বঙ্গবন্ধুকে দ্বিতীয় বার হত্যা করছে, দেশে ও মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। এই রাজনৈতিক মোল্লারা ধর্মীয় চিন্তাবিদ, আলেম, ওলামা, পীর, ধর্ম প্রচারকারী না এরা সবাই কোনো না কোন রাজনৈতিক দলের নেতা, এরা নির্বাচন করে, ভোটে দাঁড়ায়, এদের নির্বাচনী মার্কা প্রতীক আছে। এরা পবিত্র ধর্মকে রাজনীতির সাথে মিশিয়ে ধর্মের মনগড়া অপব্যাখ্যা দিয়ে ব্যক্তিস্বার্থ, গোষ্ঠিস্বার্থের রাজনীতি করে। এদের ভাস্কর্য বিরোধীতা বঙ্গবন্ধুর বিরোধীতা, বাংলাদেশের বিরোধীতা, বাঙালিয়ানার বিরোধীতা, মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীতা, সংবিধানের বিরোধীতা।

অশান্তির উস্কানিদাতা এই রাজনৈতিক মোল্লাদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

ইনু বলেন, রাজনৈতিক মোল্লাদের সামান্য ছাড় দেয়া, আসকারা দেয়া, এদের সাথে কোলাকুলি করার কৌশল আত্মঘাতি। সরকারের যে দুই একজন মন্ত্রী, আওয়ামী লীগের যে দুই একজন নেতা আলোচনার মাধ্যমে ভাস্কর্য নিয়ে ভুল বুঝাবুঝির অবসান হবে আশা করছেন তারা বোকার স্বর্গে বাস করছেন। ভাস্কর্য বিরোধীরা জেনে বুঝে পরিকল্পিত ভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে শেখ হাসিনার সরকার উৎখাতের চক্রান্তে নেমেছে। রাজনৈতিক মোল্লাদের ছাড় দেয়ার কোন সুযোগ নেই। যারা রাজনৈতিক মোল্লাদের পিঠ চাপড়াবেন, রাজনৈতিক মোল্লারা সুযোগ পেলেই তাদের ঘাড় মটকে দিবে। এরা ক্ষমার সুযোগ নিয়ে ক্ষমাকারী হত্যা করে, গণতন্ত্রের সুযোগ নিয়ে গণতন্ত্রের পিঠে ছোবল হানে।

রাজনৈতিক মোল্লারা ওয়াজ-ধর্মসভার নামে নারী বিদ্বেষী ‘তেঁতুলতত্ত্ব’ প্রচার করছে। ‘তেঁতুলতত্ত্ব’ শুধু নারী বিদ্বেষীই না, সংবিধান ও সভ্যতা বিরোধী। রাজনৈতিক মোল্লাদের নারী বিদ্বেষী ওয়াজ ধর্মসভা বন্ধ করার জন্য সরকারের প্রতি এবং রাজনৈতিক মোল্লাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে নামার জন্য সকল শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষ ও রাজনৈতিক সামাজিক শক্তির প্রতি আহ্বান জানান।

সাধারণ সম্পাদকের ভাষণে শিরীন আখতার এমপি বলেন, ভাস্কর্য বিরোধীরা বাংলাদেশ রাষ্ট্র, সংবিধান, মুক্তিযুদ্ধ কিছুই মানেনা। নারীদের অসম্মান করে এরা ধর্মের অপব্যাক্ষা দিয়ে ধর্ম অবমাননা করছে, এদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে বিচার করতে হবে।

এদিকে জাসদ আগামী ৫ ডিসেম্বর ২০২০ দেশব্যাপী সভা/সমাবেশ/মানববন্ধনের মাধ্যমে ধর্মান্ধ রাজনৈতিক শক্তি ও রাজনৈতিক মোল্লাদের বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য অপসারণ করার হুমকি, নারী বিদ্বেষী প্রচারনা, মুক্তিযুদ্ধ-সংবিধান-জাতীয় ইতিহাস-ঐতিহ্য-সংস্কৃতি-সভ্যতা বিরোধী কর্মকাণ্ড দমন করার দাবিতে ‘ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবি দিবস’ পালন করবে। ৫ ডিসেম্বর ঢাকায় সকাল ১১টায় জাসদ চত্বরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হবে।