সর্বশেষ সংবাদ

সস্ত্রীক করোনামুক্ত হলেন এমপি একাব্বর হোসেন

প্রকাশিত: ১০:১০ পিএম, সেপ্টেম্বর ৮, ২০২০
  • শেয়ার করুন

টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুরের সংসদ সদস্য এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. একাব্বর হোসেন ও তার সহধর্মিনী মিসেস ঝর্ণা হোসেন করোনামুক্ত হয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় তাদের দুজনের নমুনা পরীক্ষায় ফলোআপ রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে বলে জানা গেছে। এমপির ছেলে তাহরীম হোসেন সীমান্ত বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এমপি পুত্র তাহরীম হোসেন সীমান্ত জানান, তার পিতা একাব্বর হোসেন ও মাতা ঝর্ণা হোসেনের এর আগে কয়েক দফায় নমুনা পরীক্ষায় নেগেটিভ রেজাল্ট আসে। সর্বশেষ আজকের রিপোর্ট অনুযায়ী চিকিৎসক তাদের করোনামুক্ত বলে সুস্থ ঘোষণা করেছেন। রাতেই চিকিৎসকের ছাড়পত্র নিয়ে সিএমএইচ থেকে ঢাকার বাসায় ফিরেছেন সাংসদ একাব্বর হোসেন। এছাড়া ঝর্ণা হোসেন বাসায় আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিয়ে তিনিও সুস্থ হয়েছেন।

বর্তমানে এমপি একাব্বর শারিরীকভাবে কিছুটা দুর্বল থাকায় চিকিৎসক তাকে দুই সপ্তাহের বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বলেও জানান সীমান্ত।

এদিকে করোনায় আক্রান্ত তার বাবা-মায়ের রোগমুক্তি কামনা করে যারা বিভিন্ন মসজিদে এবং ব্যক্তিগতভাবে দোয়া করেছেন তাদের প্রতি এমপি দম্পতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বলে উল্লেখ করেন এমপি পুত্র বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক তাহরীম হোসেন সীমান্ত।

প্রসঙ্গত, গত ১৭ আগস্ট নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ হন এমপির সহধর্মিনী ঝর্ণা হোসেন। এরপর তিনি আলাদা কক্ষে আইসোলেটেড হয়ে চিকিৎসা নিতে থাকেন। অপরদিকে এমপি একাব্বর হোসেন স্বাদহীন ও শ্বাসকষ্ট অনুভব করলে গত ১৯ আগস্ট বাসায় এসে তার নমুনা সংগ্রহ করেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। ওইদিন বিকেলেই প্রাপ্ত রিপোর্টে তিনিও করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

উল্লেখ্য, এমপি একাব্বর হোসেন টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসন থেকে ২০০১, ২০০৮, ২০১৪ এবং সর্বশেষ ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে চারবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদ দীর্ঘদিন ধরে মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।