জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণে কাজ করে যেতে হবে

প্রকাশিত: ৭:৪৪ পিএম, আগস্ট ৪, ২০২০
  • শেয়ার করুন

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু একটি স্বাধীন দেশই উপহার দেননি, তিনি সদ্যস্বাধীন দেশের পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও দূরদর্শী কর্মকাণ্ডের সূচনা করেছিলেন। জাতিকে সুস্থ ও সুন্দর পরিবেশ উপহার দিতে স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে সারাদেশে বৃক্ষরোপণ অভিযান চালু করেন। তার সেই দূরদর্শী ভাবনা অনুসরণে বর্তমানে যুগোপযোগী সামাজিক বনায়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

উপকূলীয় চরাঞ্চলে বনায়নের মাধ্যমে সৃষ্ট সবুজ বেষ্টনী দেশের আয়তন বৃদ্ধিসহ প্রাকৃতিক বিপর্যয় রোধে কার্যকর ভূমিকা পালন করছে। পরিবেশ সুরক্ষা এবং বন বৃদ্ধি ও সংরক্ষণসহ জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণে সবাইকে আন্তরিকভাবে কাজ করে যেতে হবে, বলেন মন্ত্রী।

১৫ আগস্ট স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদৎবার্ষিকীতে জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে মঙ্গলবার বাংলাদেশ সচিবালয়ের পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতিমূলক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিবেশমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

’৭৫ এর ১৫ আগস্ট ঘাতকদের হাতে নির্মমভাবে নিহত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও অন্যান্য শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে পরিবেশমন্ত্রী বলেন, এবারের ১৫ আগস্ট বিশেষভাবে তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ জাতি বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ পালন করছে। দেশের মানুষের প্রতি বঙ্গবন্ধুর অকৃত্রিম ভালোবাসার কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতার সুযোগ্য উত্তরসূরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাও বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের মহামারিকালে দেশের মানুষের জীবন ও জীবিকা রক্ষায় নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

পরিবেশমন্ত্রী বিশেষ এ পরিস্থিতিতে যথাযোগ্য মর্যাদা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে তার মন্ত্রণালয় ও এর অধীন সব দফতর/সংস্থাকে নির্ধারিত কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানান।

সভায় জাতীয় শোক দিবস যথাযথ মর্যাদায় পালনের জন্য ১৫ আগস্ট পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের অধীনস্ত সব দফতর সংস্থাসমূহের ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা ও কালোব্যাজ ধারণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সরকারের সিদ্ধান্তসাপেক্ষে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের পক্ষে সীমিতসংখ্যক প্রতিনিধির উপস্থিতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হবে। পরিবেশ অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণসাপেক্ষে সীমিত আকারে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হবে। পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের অধীন সব দফতর সংস্থার মাঠপর্যায়ের অফিস জাতীয় কর্মসূচির সাথে সামঞ্জস্য রেখে কর্মসূচি গ্রহণ এবং বাস্তবায়ন করবে।

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব জিয়াউল হাসান এনডিসির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার এমপি। অন্যান্যের মধ্যে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) ড. মো. বিল্লাল হোসেন, অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজী, অতিরিক্ত সচিব (জলবায়ু পরিবর্তন) মো. মিজানুল হক চৌধুরীসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং পরিবেশ অধিদফতর, বন অধিদফতর, বাংলাদেশ বন শিল্প উন্নয়ন কর্পোরেশন, বাংলাদেশ ন্যাশনাল হারবেরিয়াম ও বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্টের প্রধানরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।



সর্বশেষ খবর