বাংলাদেশের সামনে এখন তিনটি চ্যালেঞ্জ: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত: ৭:৫৬ পিএম, জুলাই ৫, ২০২০
  • শেয়ার করুন

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাংলাদেশের সামনে এখন তিনটি চ্যালেঞ্জ। সরকারকে এখন এই তিনটি চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হচ্ছে।

রবিবার (৫ জুলাই) জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন থেকে দেয়া এক ভিডিও বার্তায় তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রথমত, করোনার সংক্রমণ রোধ ও অসহায় মানুষের প্রটেকশন; দ্বিতীয়ত, দেশের বন্যাকবলিত ১২টি জেলার মানুষের সুরক্ষা; তৃতীয়ত, আসন্ন ঈদে মানুষের সমাগম তথা ভিড় এড়ানো।

তিনি বলেন, একথা সত্য যে ঈদুল ফিতরে মানুষের অবাধ চলাচল ভিড় ও সমাবেশে সংক্রমণের মাত্রাকে বাড়িয়ে দিয়েছিল। আসন্ন ঈদুল আজহায় এ সমাগম ও ভিড় এড়াতে যেকোনো মূল্যে আমাদের দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। আসন্ন ঈদে সবাইকে সচেতন ও সাবধান হতে হবে, যাতে সংক্রমণ ছড়াতে না পারে সে ব্যাপারে লক্ষ্য রাখতে হবে, এটা নিজেদের বেঁচে থাকার স্বার্থেই।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, মির্জা ফখরুল সাহেব অভিযোগ করছেন, সরকার নাকি দেশের কারাগারগুলো ভর্তি করে ফেলছে বিএনপি নেতাকর্মীদের দিয়ে। আমরা বলতে চাই, বিএনপির শীর্ষ নেতারা তাদের ৫৯২ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটির কোন নেতা এখন জেলে আছেন? ত্রাণ চুরিসহ নানা অপরাধে যারা গ্রেফতার হচ্ছেন তাদের পরিচয় তারা অপরাধী। এছাড়া সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে যারা জড়িত তারাও অপরাধী।

তিনি বলেন, সরকার নিজেদের লোকজনকেও এ ব্যাপারে ছাড় দেয়নি। প্রধানমন্ত্রী ত্রাণে অনিয়ম, মজুত করা এসব অপরাধের জন্য ইতোমধ্যে অনেককেই গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন। তারা গ্রেফতার হয়ে জেলে আছেন। চিহ্নিত অপরাধী ছাড়া বিএনপির উল্লেখযোগ্য কোন নেতা গ্রেফতার হয়েছেন? বিএনপি প্রতিদিন অশ্রাব্য ভাষায় সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করলেও সরকার সহনশীলতার পরিচয় দিচ্ছে।

সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন, আপনারা জানেন যে গত ২৯ তারিখ সদরঘাটে লঞ্চডুবির পর উদ্ধারকারী জাহাজের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু (বুড়িগঙ্গা সেতু-১)। ঘটনার পরপরই আমরা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করি। পরদিন এক্সপার্ট ওপেনিয়ন নিয়ে জরুরি ভিত্তিতে মেরামত করে যানবাহন চলাচলের জন্য সেতু উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। বর্তমানে সীমিত পর্যায়ে হালকা যানবাহন চলছে। বিশেষজ্ঞদের পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন পেলে আমরা তাদের পরামর্শ তথা সুপারিশ অনুযায়ী স্থায়ী মেরামত করব।

তিনি বলেন, তবে এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় যাত্রী সাধারণ ও সেতু ব্যবহারকারীদের সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি। পাশাপাশি ঘটনার কারণ, দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিতকরণ ও ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।