‘লাশ গণনা ছেড়ে দিয়েছি’

প্রকাশিত: ৯:৫৫ এএম, এপ্রিল ১০, ২০২০
  • শেয়ার করুন

চারিদিকে শুধু করোনাভাইরাসের হাহাকার ও আতঙ্ক। বিশ্বটা আজ যেন ভরে গেছে; মানুষের লাশের পাহাড়ে। কোথাও নেই একটুকু প্রাণের স্বস্তি নেওয়ার জায়গা। সর্বদা জেগে থাকা নিউইয়র্ক শহরের চেহারাটা নাটকীয়ভাবে বদলে গেছে গত কয়েক সপ্তাহে। করোনার থাবায় ‘মৃত্যুপুরী’তে পরিণত হয়েছে গোটা নিউইয়র্ক। বদলে যাওয়া এই শহরে বাস করার অভিজ্ঞতা কেমন তা তুলে ধরেছেন অ্যালিক্স মন্টেলিওন ও তার প্রেমিক মার্ক কজলো।

শহরের অবস্থার কথা স্কাইপে আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন নিউইয়র্কের ব্রুকলিন অ্যাপার্টমেন্টের বাসিন্দা মন্টেলিওন ও কজলো। বাইরে বেরোতে পারছেন না তাঁরা। তাই প্রিয় শহরটা এই সময়ে কেমন আছে, তা জানতে জানালা খোলা রেখে দিয়েছেন তারা।

মন্টেলিওন বলছেন, আমরা অ্যাপার্টমেন্ট থেকে বিহঙ্গ দৃষ্টিতে দেখতে পাচ্ছি শহরটাকে।

উইকওফ হাইটস মেডিক্যাল সেন্টারে যা ঘটছে তা-ও স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছেন মন্টেলিওন ও কজলো। তার বর্ণনা দিতে গিয়ে মন্টেলিওন বলেন, আমরা শুনতে পাচ্ছি বাইরে খুব চিৎকার চেঁচামেচি হচ্ছে যা থেকেই ধারণা করতে পারি, ভেতরের পরিস্থিতি কতটা খারাপ। কত লাশ ওখান থেকে বেরিয়ে এল তা গোনা এখন ছেড়ে দিয়েছি। এটা খুবই ভয়াবহ দৃশ্য। কিন্তু এটাই বাস্তব।

মন্টেলিওন ও কজলো বলছেন, এ শহরের সঙ্গে এ ছবি বড়ই বেমানান। গোটা ঘটনাটাই ধরা পড়েছে তাদের দু’জনের চোখে।সূত্র: রয়টার্স।

প্রসঙ্গত, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১ হাজার ৯০০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ১৬ হাজার ৬৯৭ জনে দাড়াল। আর মোট আক্রান্ত ৪ লাখ ৫৬ হাজার ৪১২ জন। বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ধারে কাছে কেউ নেই। যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যেকটি অঙ্গরাজ্যে করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। তবে উইওমিং অঙ্গরাজ্যে এখনো করোনায় কারও মৃত্যু হয়নি।



সর্বশেষ খবর