দেশের জন্য সদ্যপ্রয়াত এমপি শামসুর রহমানের অগাধ ভালেবাসা ছিল: সংসদ সদস্যরা

প্রকাশিত: ১১:৩৩ এএম, এপ্রিল ১৯, ২০২০
  • শেয়ার করুন

কিছুদিন আগে প্রয়াত হন পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা শামসুর রহমান শরিফ ডিলু। দেশের জন্য এ নেতার অগাধ ভালোবাসা ছিল বলে সংসদে উত্থাপিত শোক প্রস্তাবের আলোচনায় মন্তব্য করেছেন সংসদ সদস্যরা।

শনিবার (১৮ এপ্রিল) জাতীয় সংসদের সংক্ষিপ্ত অধিবেশনে সদ্যপ্রয়াত শামসুর রহমানের মৃ’ত্যুতে শোক প্রস্তাব উত্থাপিত হয়। এতে আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সংসদ সদস্যরা শ্রদ্ধার সঙ্গে শামসুর রহমানের স্মৃতিচারণ করেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনের সভাপতিত্ব করেন।

শামসুর রহমান শরিফের স্মৃতিচারণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধসহ প্রত্যেকটি আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেছেন। দেশের প্রতি ছিল তার অগাধ ভালোবাসা। তার প্রতিটি কর্মকাণ্ডই ছিল দেশের মানুষের কল্যাণে। আওয়ামী লীগের দায়িত্ব নিয়ে যখন দেশে ফিরি, তখন সার্বক্ষণিক যে কয়জন মানুষ আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন তাদের মধ্যে ডিলু (শামসুর রহমান শরিফ) ভাই একজন। সংগঠনের জন্য তিনি একটা শক্ত পিলার ছিলেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেন, সৎ এবং একনিষ্ঠ রাজনীতিক হিসেবে এ ধরনের নেতা বিরল। ওনার সাহসিকতা, নেতৃত্বের গুণ চিরদিন পাবনার মানুষ মনে রাখবে।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, তিনি একজন সাহসী নেতা ছিলেন। তিনি বারবার পাবনা থেকে নির্বাচিত হয়েছেন। প্রতিকুল পরিবেশের মধ্যেও। নিজের জমি বিক্রি করে তিনি রাজনীতি করেছেন। বারবার কারাবন্দি হয়েছেন।

শাজাহান খান বলেন, একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন তিনি। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন, ওয়ান ইলেভেনের সময় গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন, আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার মুক্তি আন্দোলনে তিনি ছিলেন অগ্রগামী।

বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মশিউর রহমান রাঙাও শামসুর রহমান শরিফকে একজন বরেণ্য রাজনীতিক হিসেবে শ্রদ্ধা জানান।

চলতি মাসের ২ এপ্রিল ভোররাতে ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য, সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরিফ ডিলু। তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর।



সর্বশেষ খবর