কোন মানুষই না খেয়ে থাকবে না ইনশাল্লাহ

প্রকাশিত: ৭:২৮ পিএম, মে ৮, ২০২০
  • শেয়ার করুন

সারাদেশে কর্মহীন ও দরিদ্র মানুষের জন্য সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে আওয়ামী লীগ। কোথাও কোথাও ব্যক্তিগত পর্যায়ে গরিব মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেয়া হচ্ছে খাদ্যসামগ্রী। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া হতদরিদ্র মানুষের মাঝে নিজ হাতে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেছেন আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা। ত্রাণ পেয়ে খুশি এসব কর্মহীন মানুষ।

আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনসমূহের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মী, দলীয় সংসদ সদস্যসহ বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিরা দলের পক্ষে সারাদেশে ৯০ লক্ষ ২৫ হাজার ৩২৭ পরিবারকে খাদ্য সহয়তার পাশাপাশি ৮ কোটি ৬২ লক্ষ ৮ হাজার টাকা নগদ অর্থ সহয়তা প্রদান করেছে।

এছাড়াও পিপিই, চশমা, মাস্ক, সাবান, হ্যান্ড গ্লাভস, ফিনাইল, হ্যান্ড সেনিটাইজার, ব্লিচিং পাউডার, স্প্রে মেশিনসহ বিভিন্ন চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম ও টেলিমেডিসিন ব্যবস্থার মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জায়গায় চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়েছে এবং বিভিন্ন এলাকায় ফ্রি এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস চালু করা হয়েছে, যার সেবা এখনো চলমান।

সেই সাথে সারা দেশে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও কৃষকলীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরা কৃষকের ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার কর্মসূচি পালন করে আসছে। আওয়ামী লীগের পাশাপাশি যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের উদ্যোগে বিভিন্ন জায়গায় ইফতার, সেহরি ও বিনামূল্যে সবজি বিতরণ এবং টেলিমেডিসিন, ফ্রি এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস ও লাশ দাফনসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবামূলক কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

করোনা সংকটকালে সাধারণ ছুটি ঘোষণা হওয়ার পর থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে আওয়ামী লীগের পক্ষে সারাদেশে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমের মধ্যে

রংপুর বিভাগ: খাদ্য সহয়তা পেয়েছে ৮ লক্ষ ২০ হাজার ৫২৬ পরিবার এবং নগদ অর্থ সহায়তা পেয়েছে ৩৯ লক্ষ টাকা।

রাজশাহী বিভাগ: খাদ্য সহয়তা পেয়েছে ৮ লক্ষ ৪৬ হাজার ৮৬৪ পরিবার এবং নগদ অর্থ সহায়তা পেয়েছে ৮৫ লক্ষ ৪২ হাজার টাকা।

খুলনা বিভাগ: খাদ্য সহয়তা পেয়েছে ৮ লক্ষ ৬৩ হাজার ৮৪২ পরিবার এবং নগদ অর্থ সহায়তা পেয়েছে ৯৮ লক্ষ ২০ হাজার টাকা।
বরিশাল বিভাগ: খাদ্য সহয়তা পেয়েছে ৫ লক্ষ ১ হাজার ৪৩৫পরিবার এবং নগদ অর্থ সহায়তা পেয়েছে ৯৫ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা।

ঢাকা বিভাগ: খাদ্য সহয়তা পেয়েছে ৩১ লক্ষ ৫৩ হাজার ৩৩৮ পরিবার এবং নগদ অর্থ সহায়তা পেয়েছে ৩ কোটি ৭২ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা।

ময়মনসিংহ বিভাগ: খাদ্য সহয়তা পেয়েছে ২ লক্ষ ৫৬ হাজার ১২৫ পরিবার এবং নগদ অর্থ সহায়তা পেয়েছে ২১
লক্ষ ৭০ হাজার টাকা।

সিলেট বিভাগ: খাদ্য সহয়তা পেয়েছে ৩ লক্ষ ৭৮৭ পরিবার এবং নগদ অর্থ সহায়তা পেয়েছে ২৪ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা।

চট্টগ্রাম বিভাগ: খাদ্য সহয়তা পেয়েছে ২২ লক্ষ ৮২ হাজার ৪১০ পরিবার এবং নগদ অর্থ সহায়তা পেয়েছে ১ কোটি ২৫ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা।

আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা বলেন, কোন মানুষই না খেয়ে থাকবে না ইনশাল্লাহ। করোনায় কর্মহীন হয়ে আয়-উপার্জন বন্ধ হওয়া এলাকার অসহায় মানুষদের মুখে খাবার জুটানোর এ কর্মসূচি পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।