আগামীকাল স্বল্প পরিসরের সংসদ অধিবেশন

প্রকাশিত: ৫:২০ পিএম, এপ্রিল ১৭, ২০২০
  • শেয়ার করুন

আগামীকাল শনিবার (১৮ এপ্রিল) সাংবিধানিক নিয়মানুযায়ী সংসদের সপ্তম অধিবেশন বসছে। এ দিন বিকেল ৫টায় অধিবেশন বসবে। করোনাভাইরাসের কারণে এ অধিবেশনের সময়সীমা ৬০ মিনিটের মতো হতে পারে।

এছাড়া সংসদ সদস্যদের অধিবেশন কক্ষে বসার সময় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা হবে। কোরাম (৬০) পূর্ণ হলেই অধিবেশন শুরু হবে। সমাগম এড়াতেও নানা পদক্ষেপ নিয়েছে সংসদ।

আজ শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া।

তিনি বলেন, ‘সংসদে সমাগম এড়াতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতি যাতে কম হয় তাও নিশ্চিত করা হবে। প্রয়োজন নেই এমন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আসতে মানা করা হবে।’

এক অধিবেশন শেষ হওয়ার পরবর্তী ৬০ কার্যদিবসের মধ্যে আবার সংসদ বসার বাধ্যবাধকতা সংবিধানে রয়েছে। সর্বশেষ ষষ্ঠ অধিবেশন শেষ হয়েছিল ১৮ ফেব্রুয়ারি। সেই হিসেবে ১৮ এপ্রিলের মধ্যে সংসদের অধিবেশন বসতে হবে।

সংসদ সূত্র জানায়, এখন ঢাকায় আছেন এমন এমপিদেরকেই শুধু সংসদে যাওয়ার উৎসাহ দেয়া হবে। তারা সংসদে প্রবেশের সময় এমপিদের তাপমাত্রা মাপা হবে। আর সংসদ মুলতবি নিয়ে জুন পর্যন্ত রাখা যায় কি না সে বিষয়েও চিন্তা ভাবনা চলছে। সংসদ অধিবেশন শুরুর আগে সংসদের কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে ঢাকায় অবস্থান করছেন এমন এমপিদের শুধু সংসদে যাওয়ার জন্য উৎসাহ দেয়া হবে। প্রবীণ এমপিদের সংসদে না যাওয়ার জন্য ইতিমধ্যে ফোন দেয়া হয়েছে। আর ঢাকায় রয়েছেন এমন সংরক্ষিত নারী আসনের এমপিদের ফোন দেয়া হচ্ছে যাতে তারা সংসদে যান।

এই অধিবেশনের সংবাদ সংগ্রহ করতে না যাওয়ার জন্য আগেই সাংবাদিকদের অনুরোধ করা হয়েছে।

সংসদের আইন শাখা জানায়, চলতি সংসদের কোনো সংসদ সদস্য মারা গেলে অধিবেশনের শুরুর দিনে শোক প্রস্তাব গ্রহণের পর বৈঠক মুলতবি করা হয়। চলতি সংসদের সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু (পাবনা-২) গত ২ এপ্রিল মারা যান। তাই বৈঠকের শুরুতেই শোক প্রস্তাব উত্থাপন ও তার শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনা হবে। শোক প্রস্তাব গ্রহণের পরপরই বৈঠক শেষ করে দেয়া হবে।



সর্বশেষ খবর